বর্ষাকালে কুকুরের যত্ন কিভাবে করবেন

বর্ষাকালে কুকুরের যত্ন
বর্ষাকাল তাপমাত্রা ও দূষণ কমিয়ে আনে। এর মানে হলো আপনার প্রিয় কুকুরটি বাইরে আরও বেশি সময় উপভোগ করতে পারে। তবে বৃষ্টির সাথে সম্পর্কিত সমস্ত আনন্দের মধ্যে পোষা প্রাণীর ত্বকের সংক্রমণ এবং বদহজম সহ অন্যান্য রোগে আক্রান্ত হওয়ার প্রবল সম্ভাবনা রয়েছে। তাই একজন কুকুর প্রেমী হিসেবে বর্ষাকালে আপনার কুকুরের অতিরিক্ত যত্ন নেওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করা গুরুত্বপূর্ণ। তাই আপনার সুবিধার্থে আজকের আর্টিকেলে বর্ষাকালে কুকুরের যত্ন এবং এই মৌসুমে আপনার প্রিয় কুকুরকে সুস্থ রাখার কিছু বিশেষ উপায় সম্পর্কে জানাবো। তাহলে চলুন জেনে নেওয়া যাক –

বর্ষাকালে বাইরে কিংবা বেড়াতে যাওয়ার ক্ষেত্রে সাবধানতা-

  • বর্ষাকালে বাইরে কিংবা বেড়াতে যাওয়ার ক্ষেত্রে আপনার কুকুরকে গর্তের মধ্য দিয়ে হাঁটতে দেবেন না। গর্ত গুলোতে ইঁদুরের আবর্জনা থাকতে পারে, যা দ্বারা আপনার পোষা কুকুর দূষিত হতে পারে। এছাড়াও, নিশ্চিত করুন যে তারা ভুলবশত বাইরের দূষিত পানি যেনো পান না করে।
  • লেপ্টোস্পাইরোসিস একটি সাধারণ সংক্রমণ যা ইঁদুরের প্রস্রাবের সাথে দূষিত পানির কারণে ছড়াতে পারে। এই রোগটি আপনার কুকুরের কিডনি এবং লিভারের মারাত্মক ও গুরুতর ক্ষতি করতে পারে। তাই সাবধানতা অবলম্বন করবেন।
  • বিভিন্ন দোকানে পোষা প্রাণীদের জন্য অভিনব প্রতিরক্ষামূলক পোশাক পাওয়া যায়।  যেমন- রেইনকোট, সোয়েটার, ক্যাপ, গামবুট, কম্বল, চিরুনি, বৃষ্টিতে খাঁচা ঢেকে রাখার জন্য প্লাস্টিকের চাদর ইত্যাদি। বর্ষাকালে কুকুরের যত্নে এই সকল জিনিসগুলো ব্যবহার করতে পারেন।

কুকুরের খাবারের ক্ষেত্রে যত্ন নেওয়া আবশ্যক-

  • উচ্চ মাত্রায় বায়ুমণ্ডলীয় আর্দ্রতার সাথে, খাদ্যের স্বাস্থ্যবিধি খুবই গুরুত্বপূর্ণ। দূষণ এড়াতে আপনার পোষা প্রাণীর খাবারের বাটিগুলো ফুটন্ত পানি এবং সাবান দিয়ে প্রতি কয়েক দিন পর পর পরিষ্কার করুন।
  • বর্ষাকালে বৃষ্টির কারণে বাইরে যেতে না পারার ফলে কুকুরের ব্যায়াম কমে যায়, এর ফলে অলসতা দেখা দেয়। এই কারণেই বর্ষায় আপনার কুকুরের ডায়েটে ক্যালোরির পরিমাণ কম হওয়া উচিত এবং স্থূলতা প্রতিরোধ করার জন্য ফাইবার এবং প্রোটিন বেশি হওয়া উচিত।

কুকুরের জন্য বিশুদ্ধ পানি একটি বিশেষ প্রয়োজনীয়তা-

  • বর্ষাকাল সাধারণত পানিবাহিত রোগ অন্ত্র ও পাকস্থলীর সংক্রমণের প্রজনন ক্ষেত্র হয়ে উঠে। অতএব, অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে যে আপনার পোষা প্রাণী পরিষ্কার জল পান করছে এবং নিশ্চিত করুন যে তাকে সমস্ত প্রয়োজনীয় টিকা দেওয়া হয়েছে।
  • অপরিষ্কার পানি খেলে কুকুরের জন্ডিস হতে পারে। তাই অবশ্যই সেদ্ধ অথবা ফিল্টার করা পানি দেওয়ার চেষ্টা করুন।

বর্ষাকালে গ্রুমিং করা অত্যধিক গুরুত্বপূর্ণ-

  • বর্ষাকালে, আপনার কুকুরের সঙ্গীরা আর্দ্রতার সংস্পর্শে আসে, যা তাদের পডোডার্মাটাইটিসের জন্য সংবেদনশীল করে তোলে। তাই যথেষ্ট গ্রুমিং করা জরুরি। 
  • পার্ক এবং ভিজা রাস্তায় বের হলে অতিরিক্ত আর্দ্রতার কারনে কুকুরের ফলিকলস দুর্বল হয়ে যেতে পারে। যার ফলে চামড়া প্রদাহ বাড়তে পারে। তাই বর্ষাকালে অতিরিক্ত যত্ন নেওয়া জরুরি। 
  • রক্তপাত এবং সংক্রমণ রোধ করতে তাদের নখ গুলি ত্বকের খুব কাছাকাছি জায়গা থেকে যেনো না কাটা হয় তা অবশ্যই নিশ্চিত করুন।

বর্ষাকালে কুকুরের শরীরের পশমের যত্ন

  • বর্ষাকালে কুকুরের শরীরের পশম বেশিরভাগ সময় স্যাঁতসেঁতে হয়ে থাকে। স্যাঁতসেঁতে পশম এবং এর সাথে থাকা বিভিন্ন গন্ধ এড়াতে, প্রতিবার পশম ভিজে গেলে আপনাকে ভালোভাবপ শুকিয়ে মুছে নিতে হবে।
  • দিনে অন্তত দুবার আপনার পোষা প্রাণীর পশমগুলো সুন্দরভাবে ব্রাশ করে দিতে ভুলবেন না।
  • বর্ষাকালে পোষা প্রাণীর পশমের গন্ধ নিয়ন্ত্রণ করতে হলে কিছু বিশেষ পদ্ধতি অবলম্বন করতে পারেন।  আপনি কুকুরের পাউডার এবং ডিওডোরেন্টগুলি ব্যবহার করতে পারেন যা পোষা প্রাণীর দোকানে খুব সহজেই পেয়ে যাবেন।
  • আর্দ্রতার কারণে বর্ষায় টিক্স এবং মাছির উপদ্রবও বাড়তে পারে। কয়েকদিন পর পর নিয়ম করে আপনার কুকুরের গায়ে কোনো ধরনের পোকা আছে কিনা তা পরীক্ষা করুন।  যদি আপনি স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি পোকা এবং মাছি দেখতে পান, তাহলে তাৎক্ষনিকভাবে ব্যবস্থা নেওয়া জরুরি। ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী ঔষধ যুক্ত শ্যাম্পু বা স্প্রে ব্যবহার করতে পারেন। এতেও ভালো না হলে সরাসরি যেকোনে পশু চিকিৎসক এর সাথে যোগাযোগ করুন।

কুকুরের কানে সংক্রমণ-

  • আর্দ্র আবহাওয়ার কারনে তাদের কানের সংক্রমণের মাত্রা বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। যা কুকুরের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ করে তোলে। বর্ষাকালে প্রতিদিন একটি পরিষ্কার কটন বাড এর মাধ্যমে তাদের কান পরিষ্কার করতে হবে। বছরের অন্য সময়ে, মাসে একবার পরিষ্কার করা ঠিক আছে।
  • পোষা প্রাণীর সাজসজ্জার কেন্দ্রগুলিও একটি পুঙ্খানুপুঙ্খ ভাবে কান পরিষ্কার করার কাজ করে।

বজ্রপাত আপনার পোষা কুকুরের পক্ষে সহজ নয়-

  • বজ্রঝড়ের উদ্বেগ অনেক কুকুরকে প্রভাবিত করতে পারে এবং প্রায়ই তাদের বিষণ্ণ করে তুলতে পারে। বজ্রপাতের সময় আপনার কুকুরকে বাড়ির ভিতরে রাখা ভাল।
  • বজ্রপাতের সময়গুলোতে কুকুরের সঙ্গ দেওয়ার জন্য থাকা সর্বদা একটি ভাল ধারণা।
  • আপনার কুকুর যদি টেবিল বা চেয়ারের নীচে লুকিয়ে থাকতে চায় তবে তাদের সেখানেই লুকিয়ে থাকতে দিন।
  • আপনার পোষা প্রাণীর মনযোগ বজ্রপাত ও ঝড়ের উদ্বেগ থেকে সরানোর জন্য এবং তাদের বিভ্রান্ত করার জন্য আপনি ঘরে কিছু হালকা সঙ্গীত বাজাতে পারেন, বা এমনকি তুলো ইয়ার প্লাগ ব্যবহার করতে পারেন।
  • ভারী বৃষ্টিপাত এবং বজ্রপাতর সময় আপনার কুকুরকে বাড়িতে প্রস্রাব করার জন্য আলাদা জায়গা দেওয়া উচিত।

শেষ কথা!

আশা করি আজকের আর্টিকেলটি সম্পূর্ন পড়ার পর বর্ষাকালে কুকুরের যত্ন সংক্রান্ত অনেক প্রয়োজনীয় এবং গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জানতে পেরেছেন। এই সকল তথ্য গুলো আপনার প্রিয় কুকুরকে বর্ষাকালে আরও ভালো এবং সুস্থ রাখতে বিশেষ ভাবে সাহায্য করবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.